চিত্রাঙ্গদা দেব : প্রেমের কবিতার নায়িকা

প্রজাপতি প্রজন্মের নারী তুই চিত্রাঙ্গদা দেব

রবীন্দ্রনাথ, এটা কিন্তু ভালো হচ্ছে না।
চিত্রাঙ্গদা বলছিল আপনি প্রতিদিন
ওকে রুকে নিচ্ছেন, আপনাকে সাবান
মাখাবার জন্য, বুড়ো হয়েছেন বলে
আপনি নাকি একা বাথরুমে যেতে
ভয় পান, আর হাতও পৌঁছোয় না
দেহের সর্বত্র, চুলে শ্যাম্পু-ট্যাম্পু করা-
পোশাক খুললে, আসঙ্গ-উন্মুখ নীল
প্রজাপতি ওড়ে ওরই শরীর থেকে
আর তারা আপনার লেখা গান গায় !

এটা আপনি কী করছেন ? আপনার
প্রেমিকারা বুড়ি থুতথুড়ি বলে কেন
আমার প্রেমিকাটিকে ফাঁসাতে চাইছেন !

Posted in Uncategorized | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

কৃতী ঘোষ : প্রেমের কবিতার নায়িকা

হ্যাঁ ! ঠিক দেখছি কি ? হ্যাঁ, ওইখান থেকে
নদী বাঁক নিয়েছিল তোর গান শুনে
অবন্তিকা ; তোর কন্ঠস্বরে বনাঞ্চল
রুপোলি লেজার আলো মেখে পাগলের
নিঃশ্বাসে ওগরানো সমুদ্রের ঢেউ
ডেকে নিয়ে গিয়েছিল অজস্র মানুষ
যারা তোর গান শুনে বেঁচে থাকবার
পাচ্ছিল উদ্দেশ্য খুঁজে ! কী করলি তুই ?
পট-হ্যাশ-কোক-অ্যামফিটেমাইনের
ব্ল্যাক হোলে নদীটাকে নিয়ে চলে গেলি–
কেন গেয়েছিলি তবে ‘ভালোবেসে যাবো
তোমাদের চির কাআআআআআআল…
চিরকাল এত ছোটো ? এতটুকুখানি !

Posted in Uncategorized | Tagged , , , , | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায় : প্রেমের কবিতার নায়িকা

‘নচ্ছার হৃদয়হীন বিশ্বাসঘাতক’ বলে চিৎকার করেছিলে সকলকে শুনিয়ে

প্রতিদানে আজ পাঠাচ্ছি হৃৎপিণ্ডখানা  কাচের স্বচ্ছ জারে,চুবিয়ে ফরম্যালিনে, 

ধুয়েপুঁছে একেবারে পরিষ্কার করা, রক্ত লেগে নেই, কেবল স্পন্দন আছে আর

জীবন্ত কাঁপন, প্রতিবার তোমার নাম নিয়ে আলোকিত হবে হৃৎপিণ্ড আমার ; 

প্রতিটি স্পন্দন তোমার মুখশ্রীকে প্রতিমার জ্যোতি দেবে, হাতে নিয়ে দেখো,

বিছানার পাশে টেবিলে রেখে দেখো, বেডল্যাম্প দরকার হবে না, এমনকী

তোমার পাশে যে পুরুষ শুয়ে সেও শুনতে পাবে না আমার হৃৎপিণ্ডের ডাক

অবিরাম অবিরাম তোমাকে না-পাবার কষ্ট জারের লেবেলে লেখা আছে

যে-নাম আমার দেয়া সেই দীর্ঘশ্বাসে স্পন্দিত হবে ক্ষণে-ক্ষণে বহুবার

ওই কাটা রক্তহীন নচ্ছার বিশ্বাসঘাতক হৃৎপিণ্ডকে পারলে ভালোবেসো

Posted in Uncategorized | Tagged , , , , | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

সঞ্চয়িতা ভট্টাচার্য : প্রেমের কবিতার নায়িকা

তোমার তামাটে পা
মলয় রায়চৌধুরী
তোমার পায়ের দিকে চেয়ে থাকি, একদৃষ্টে সম্ভব নয় চেয়ে থাকা
কী বলে এই দৃশ্য ও অদৃশ্যের মাঝে দ্রুত ঝরোয়ার তামাটে গোড়ালিকে ?
পুরবীকল্যাণ, কামেশ্বরী, চারুকোষ, জনসন্মোহিনী আঙুলগুলোকে ?
পায়ের অবিস্মরণীয় স্মৃতিশক্তি আর কারোর দেখিনি কখনো
মনে হয় রেক্যুইয়েমের ইঙ্গিতবাহী তামাটে ঘনশ্যামা মন্দ্র সপ্তক
অথচ শব্দ নেই, বাতাসও নিথর, কেবল তোমার
দুটি তামাটে পায়ের স্পর্শে পৃথিবী সূর্যকে কেন্দ্র করে ঘুরেই চলেছে

Posted in Uncategorized | Tagged , , , | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

সুপ্রীতি বর্মণ : প্রেমের কবিতার নায়িকা

Posted in Uncategorized | Tagged , , , , | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

অনামিকা বন্দ্যোপাধ্যায় : প্রেমের কবিতার নায়িকা

Posted in Uncategorized | Tagged , , , | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

জয়িতা ভট্টাচার্য : প্রেমের কবিতার নায়িকা

এ নাও সর্বস্ব দিচ্ছি, তোমার তালিকায় টিক দিয়ে নাও এক-এক করে

পাটিপত্র পানখিল দধিমঙ্গল গায়ের হলুদে পাঠিয়েছিলুম মাথা কেটে

পাণিগ্রহণ ধৃতিহোম অরুন্ধতী নক্ষত্র দর্শন সম্প্রদানে দিয়েছি হৃৎপিণ্ডখানা

এবার গায়ের হলুদে নাও হাতের রেখা থেকে সব নদী ও সমুদ্রের ঢেউ

সাতপাক শুভদৃষ্টিতে নাও শিরায় বয়ে-চলা মোৎসার্ট সিমফনি

মালা বদলেতে নাও আমার ঘামের গন্ধ সাভানার পুরুষ সিংহের

অঞ্জলি ও সিঁদুরদানে দিয়ে দিচ্ছি অণ্ডকোষ-ভরা শুক্রকীটের সামগান

সর্বস্ব চাইছ বলে দিয়ে দিলুম উদ্যত  লিঙ্গখানা উপড়ে তোমাকেই

Posted in Uncategorized | Tagged , , | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

উপমা আফরিন খেয়া : প্রেমের কবিতার নায়িকা

Posted in Uncategorized | Tagged , , , | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

বহতা অংশুমালী মুখোপাধ্যায় : প্রেমের কবিতার নায়িকা

Posted in Uncategorized | Tagged , , , , | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

সোনালী মিত্র : প্রেমের কবিতার নায়িকা

Posted in Uncategorized | Tagged , , , , | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান